মে’য়েদের শ’রীরের যে ৬টি অং’শে কখনোই হা’ত দে’বেন না!

মানুষের শরীর খুব সেনসেটিভ৷ যখন তখন যত্রতত্র হাত দেওয়া সমীচিন নয়৷ বাড়ির বড়োরা একথা হামেশাই বলে থাকেন৷ কিন্তু এবার এই একই কথা বললেন ডাক্তাররা৷

জানালেন, নারী দেহের কয়েকটি অংশ কখনই যখন তখন হাত দিয়ে স্প’র্শ করা উচিত নয়৷১. মুখ:ব্রণর সমস্যা থাকলে কখনওই মুখ হাত দিয়ে ছোঁয়া যে খাবার গুলার কারনে যেকোনো মুহূর্তে হতে পারে হার্ট অ্যাটাক

উচিত নয়৷ এমনকী মুখ ধোয়ার আগেও স’তর্কতা অ’বলম্বন করা জরুরি৷ মুখ ধোয়ার আগে ভালো করে হাত ধুয়ে নিন৷ কারণ হাত থেকেই বেশিরভাগ সময় জী’বাণু ছ’ড়িয়ে পড়ে৷ তা থেকে রো’গ হওয়া অসম্ভব নয়৷ ২. চোখ:সারাদিনে বেশ কয়েকবার আমাদের চোখ চুলকোয়৷ কাজের মধ্যে অজান্তেই আমরা হাত দিয়ে চোখ

চুলকে নিই৷ ডাক্তাররা বলছেন এখান থেকে ছ’ড়িয়ে পড়তে পারে জীবাণু৷ দেহের সবচেয়ে সেনসেটিভ অংশ চোখ৷ তাই এই অংশটিকে সাবধানে
র’ক্ষা করা উচিত৷ বেশিরভাগ সময়ে চোখের ইনফেকশন হাত থেকেই ছ’ড়িয়ে পড়ে৷

৩. নখের নিচের ত্বক:নখের নিচের ত্বকের চা’মড়া হয় খুব নরম৷ নখেরনিচে সবচেয়ে বেশি নোংরা জমে৷ তাই নি’য়মিত নখ প’রিষ্কার করা উচিত৷ নাহলে সেখান

থেকে জীবাণু ছড়িয়ে পড়তে পারে নিচের চামড়ায়৷ ৪. কান:প্রায়শই মনের খেয়ালে আমরা কানে আ’ঙুল ঢু’কিয়ে কা’ন পরিষ্কার করি৷ আদতে কিন্তু কান তাতে নোংরাই হয়৷ হাতে যা জীবাণু লেগে থাকে, তা সরাসরি কানে চলে যায়৷ তাই

যতটা সম্ভব কান থেকে হাত দূরে রাখা উচিত৷ ৫. মুখ:হাত নোংরা তো বটেই, হাত পরিষ্কার থাকলেও তা কখনই মুখের ভিতরে দেওয়া উচিত নয়৷ চিকিৎসকদের মত তেমনই৷ কারণ মুখের সাহায্যেই দেহের অভ্যন্তরে সবকিছু প্রবেশ

করে৷ ফলে রোগের স’ম্ভবনা অমূলক নয়৷ ৬. নাক:হাত নয়৷ নাক পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করুন স্যানেটাইজড রুমাল৷ গবেষণা বলছে যারা নাক পরিষ্কার করার জন্য হাত ব্যবহার করে, তারা রোগাক্রান্ত হয় বেশি৷ তুলনায় যারা একটু সাবধানতা অবলম্বন করে, রুমাল ব্যবহার করে, তারা অনেক বেশি সুস্থ থাকে৷

## কমেন্ট বক্সে মতামত দিনঃ-

Check Also

আমার মতো হতে হলে শা’কিব কে আরো সা’ত বার জ’ন্ম নিতে হবেঃহি’রো আ’লম

শাকিব খানের চেয়ে কম জনপ্রিয় নন হিরো আলম’ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিব খান। বর্তমান সময়ে …

Leave a Reply

error: